পাঁচবিবিতে হেযবুত তওহীদের সদস্যদের উপর হামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি, জয়পুরহাট:

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার আটাপাড়া বাজারে হেযবুত তাওহীদের সদস্যদের উপর হামলা চালিয়েছে স্থানীয় মাদকব্যবসায়ী ও জামায়াত-বিএনপিকর্মীরা। গত শুক্রবার (১৮ জানুয়ারি ২০১৯) দুপুরে সংঘটিত এই বর্বরোচিত হামলায় অন্তত পাঁচজন আহত হন, তার মধ্যে কয়েকজন গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহতরা হলেন, আবু তাহের হোসেন, মুকুল হোসেন, শহিদুল ইসলাম, শিরিনা বেগম; আহত অপরজনের নাম জানা যায়নি।

স্থানীয় বাসিন্দা ও প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে জানা যায়, শুক্রবার দুপুরের দিকে হেযবুত তাওহীদের কয়েকজন সদস্য বাজারে আসলে একদল সন্ত্রাসী, মাদকব্যবসায়ী ও জামায়াত-বিএনপি’র কর্মী দলবদ্ধ হয়ে প্রথমে সেখানকার স্থানীয় এক নারী সদস্যের উপর হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীদেরকে প্রতিরোধ করতে গেলে তারা অপর হেযবুত তওহীদ সদস্যদের উপরও চড়াও হয়। এক পর্যায়ে তারা নিজের বাড়িতে আশ্রয় নিলে সন্ত্রাসীরা সেখানেও সংঘবদ্ধ হয়ে হামলা ও ভাঙচুর চালায়। এক পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ভিকটিমদের উদ্ধার করে।

হামলায় আহত মুকুল হোসেন জানান, স্থানীয় একদল সন্ত্রাসী ও জামায়াত-বিএনপির কয়েকজন কর্মী সাধারণ মানুষের মধ্যে অপপ্রচার ও প্রোপাগান্ডা চালিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে তাদেরকে বিক্ষুদ্ধ করে তোলে। এরপর সংঘবদ্ধ হয়ে তারা আমাদের উপর হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে। এক পর্যায়ে থানায় যোগাযোগ করলে পুলিশ এসে আমাদের উদ্ধার করে। কিন্তু হামলাকারীরা পুলিশের হেফাজতে থাকাকালীনও গাড়ি থেকে আমাদেরকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে।

এ বিষয়ে জয়পুরহাট জেলা হেযবুত তওহীদের সভাপতি মো. আবু রায়হান বলেন, মিথ্যা তথ্য দিয়ে অপপ্রচার চালিয়ে সাধারণ মানুষের ধর্মবিশ্বাসকে কাজে লাগিয়ে কতিপয় স্বার্থান্বেষী ধর্মব্যবসায়ী কর্তৃক এ ধরণের হামলার ঘটনা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও যথাযথ বিচার দাবি করছি।

বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন ফাউন্ডেশনের মহাসচিব এস এম সাইফুর রেজা এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানান এবং এ ধরণের বর্বরোচিত হামলার জন্য দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি কারেন।

এ বিষয়ে পাঁচবিবি থানার অফিসার ইনচার্জ বজলার রশিদ জানান, প্রাথমিকভাবে ভিকটিমদের থানায় জিডি করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের নিয়ে বসে মিমাংসা করা হয়েছে।

বজ্রশক্তি/এম