ফ্রেঞ্চ ওপেনে নাদালই রাজা!

এলাম, দেখলাম, জয় করলাম। রোলাঁ গ্যাঁরোর সঙ্গে এমনই বন্ধুত্ব তার। কোর্টের লাল সুড়কির প্রতিটি কণাও যেন ভালোবাসে তাকে। রবিবার সেই বন্ধুত্ব আরও গভীর হল। সেই বন্ধুত্বের বন্ধন আরও দৃঢ় হল। ফ্রেঞ্চ ওপেনের পুরুষ এককের ফাইনালে পাওয়া গেল সেই দৃঢ়চেতা স্প্যানিশ টেনিস তারকাকেই। দুর্দান্ত খেলেই ফ্রেঞ্চ ওপেনের ১১তম শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাংকিংয়ের এক নম্বর খেলোয়াড়। তার গতির সামনে এদিন দাঁড়াতেই পারেননি ডোমিনিক থিয়েম। অসাধারণ পারফরম্যান্সের সৌজন্যে নাদাল ৬-৪, ৬-৩ এবং ৬-২ গেমে হারান ডোমিনিক থিয়েমকে।
ফরাসি ওপেনের শিরোপা নিজের করে রাখায় রাফায়েল নাদালের গ্র্যান্ডস্লাম সংখ্যাটা এখন ১৭। এই মেজর টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতেই নতুন এক ইতিহাস গড়লেন নাদাল। ছুঁয়ে ফেললেন কিংবদন্তি মার্গারেট কোর্টকে। ১৯৬০ থেকে ১৯৭৩ সালে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ১১তম শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছিলেন মার্গারেট কোর্ট। এরপর কেটে গেছে দীর্ঘ সময়। কিন্তু কেউ আর তা করে দেখাতে পারেননি। অবশেষে রবিবার সেই অবিশ্বাস্য কীর্তি গড়লেন নাদাল। দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে একই গ্র্যান্ডস্লাম ১১বার জয়ের রেকর্ড গড়লেন তিনি।
অসামান্য এই কীর্তি গড়ে উচ্ছ্বাসের জোয়ারে ভাসছেন রাফায়েল নাদাল। নিজের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে ৩২ বছরের এই স্প্যানিয়ার্ড বলেন, ‘১১ গ্র্যান্ডস্লাম জেতাটা একটা স্বপ্ন। যেভাবে খেলেছি এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা প্রতিপক্ষ হিসেবে সে দুর্দান্ত খেলোয়াড়।’ রাফায়েল নাদালের খেলা দেখার জন্য এদিন সস্ত্রীক গ্যালারিতে উপস্থিত হয়েছিলেন জিনেদিন জিদান। সম্প্রতি যিনি গোটা ফুটবল দুনিয়াকে অবাক করেই স্পেনের জায়ান্ট ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ান। সূত্র : বিবিসি