সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:

মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ। এই ৩টি নির্মূল করতে পারলে আমরা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সক্ষম হবো। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। দেশের এ উন্নয়নের পথে জননেত্রী ৩টি বাধা উপলদ্ধি করেছেন আর তা হলো মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ। স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় বাংলাদেশ পুলিশই সর্বপ্রথম রাজারবাগে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল। পাক বাহিনীর সাথে যুদ্ধে মোকাবেলা করার জন্য অস্ত্রাগারগুলো মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য খুলে দিয়েছিল। আমরা সেই পুলিশের উত্তরসূরি।

মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূল না করে বাংলাদেশ পুলিশ ঘরে ফিরবে না। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য নিয়ে উন্নয়নের মহাসড়কে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রধান বাধা উল্লেখ করে পুলিশ প্রধান বলেন, আমরা সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গি প্রতিরোধে নেমেছি। আমরা একটি সুখি সমৃদ্ধশালী সোনালী দিনের অপেক্ষা করছি। কোনো পুলিশ সদস্যও যদি মাদকের সাথে জড়িয়ে পড়ে তার বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আমরা জিতবই। কোনো নিরীহ মানুষ যেন হয়রানি না হয় সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। তিনি পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে বলেন, কোনা নিরীহ মানুষকে হয়রানি করা যাবে না। কোন নিরীহ মানুষকে যদি কোনো পুলিশ অযথা হয়রানি করে তাহলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। গতকাল  বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় সাতক্ষীরা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত মাদক, সন্ত্রাসী ও জঙ্গিবাদবিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. জাবেদ পাটোয়ারি।

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার সাজ্জাদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে  বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি দিদার আহমেদ, নৌ পুলিশের অতিরিক্ত ডিজি (ঢাকা) মারুফ হাসান, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত) নিশ্চিন্ত পোদ্দার, সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য জগলুল হায়দার, সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ইফতেখার হোসেন, ৩৩ বিজিবি’র অধিনায়ক মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুনসুর আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোশাররফ হোসেন মশু, পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু, দেবহাটা উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল গণি, কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ স্বপন, তালা উপজেলা চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, সাবেক এমপি ইঞ্জিনিয়ার মুজিবুর রহমান, জেলা পুলিশিং কমিউনিটি ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ডা. আবুল কালাম বাবলা, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জ্যোন্সা আরাসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

এর আগে মাদক ধ্বংস এবং কিছু মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীদের শপথবাক্য পাঠ করান আইজিপি। পরে তাদের আয়ের উৎস হিসাবে ভ্যান প্রদান করা হয়।