রাজধানীতে দৈনিক বজ্রশক্তির ৫ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

নিজস্ব প্রতিনিধি:
‘সংস্কৃতির মধ্যেই প্রতিফলন ঘটে একটি জাতির নিজস্বতা, রুচি-অভিরুচি, খাদ্যাভ্যাস, পোশাক, ইতিহাস-ঐতিহ্য, শিক্ষা, জীবনবোধ, নীতি-নৈতিকতা সককিছুর। কিন্তু ধর্মব্যবসায়ী শ্রেণিটি ইসলামের অপব্যাখ্যা দিয়ে ফতোয়ার ছুরি চালিয়ে মুসলিমের জীবন থেকে সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডকে বিচ্ছিন্ন করে রাখতে চায়। অথচ ইসলাম কোনো সত্য ও সুন্দর, মানুষের সুকুমার বৃত্তি, প্রতিভা, সুর, সঙ্গীত, সাহিত্য, চলচ্চিত্র, নাটক ইত্যাদিকে হারাম বলে না। ইসলামে হারাম কেবল অশ্লীলতা ও ক্ষতিকর বিষয়সমূহ।’

গতকাল দৈনিক বজ্রশক্তির ষষ্ঠ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে রাজধানীর শিশু একাডেমী মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। “সভ্য জাতি বিনির্মাণে সংস্কৃতি’’ শীর্ষক এই অনুষ্ঠানে সভাপ্রধান হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক বজ্রশক্তির সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম।Bajroshakti-Ani2

প্রধান অতিথির প্যানেলে ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল এর চেয়ারম্যান বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ ও বিশিষ্ট অভিনেতা সাবেক অধ্যাপক ড. ইনামুল হক।

এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট অভিনেতা নাদের চৌধুরী, চলচ্চিত্রাভিনেতা আফজাল শরীফ, সিনিয়র সাংবাদিক বরুণ ভৌমিক নয়ন, যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ফরিদা মজিদ, সাবেক ডিআইজি পি আর বড়ুয়া, বাংলাদেশ অনলাইন টেলিভিশন এসোসিয়েশনের সভাপতি জেটিভির চেয়ারম্যান মো. মশিউর রহমান, দৈনিক বজ্রশক্তির সম্পাদক এস এম সামসুল হুদা, দৈনিক দেশেরপত্রের সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী, দৈনিক বজ্রশক্তির সাহিত্য সম্পাদক রিয়াদুল হাসান প্রমুখ।

বিকাল তিনটার মধ্যে শিশু একাডেমী মিলনায়তন দর্শক-স্রোতা ও অতিথিদের আগমনে প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে। এ সময় উদ্বোধনী বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের মূল পর্ব শুরু করেন অনুষ্ঠানের সভাপ্রধান হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম।

তিনি বলেন, ‘আমাদের সমাজের অন্যতম সমস্যা ধর্মান্ধতা, কূপমণ্ডূকতা। ফতোয়া দেওয়া হয় গান গাওয়া হারাম, গান শোনা হারাম, ছবি অঙ্কন হারাম, খেলাধুলা হারাম ইত্যাদি। এভাবে একদিকে ধর্মের নামে যখন মানুষকে সংস্কৃতিবিমুখ করার চেষ্টা হচ্ছে তখন অন্যদিকে এই ধর্মান্ধতার মোকাবেলা করতে গিয়ে অনেকে ধর্মকেই প্রতিপক্ষ বলে মনে করছেন। এই সমস্যার সমাধানের জন্য প্রকৃত ইসলামের শিক্ষাকে মানুষের সামনে উপস্থাপন করার বিকল্প নেই। দৈনিক বজ্রশক্তি সেটাই করে চলেছে। ইনশা’আল্লাহ আমরা প্রমাণ করে দিব- ওই ধর্মান্ধতা প্রকৃত ইসলামের শিক্ষা নয়।’

তিনি বলেন, ‘একদিন আমরা বাঙালিরাই সারা দুনিয়াকে লিড দিব। কারণ ভাষার জন্য যারা জীবন দিতে পারে, স্বাধীনতার জন্য যারা যুদ্ধ করতে পারে, তারা অবশ্যই সারা দুনিয়াকে লিড দেওয়ার সামর্থ্য রাখে। আমরা কোনো দিক দিয়ে দুর্বল নই, আমরা সকল দিক দিয়ে সমৃদ্ধ। কিন্তু অন্যায়কে যখন মেনে নেওয়া হয়, অন্যায়ের সামনে আত্মসমর্পণ করা হয় তখন মানুষের আত্মিক মৃত্যু হয়ে যায়। যদি আমরা যাবতীয় অন্যায়ের বিরুদ্ধে, ধর্মব্যবসার বিরুদ্ধে, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে, অপরাজনীতির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে পারি তাহলে আমরাই সমস্ত পৃথিবীকে লিড দিতে পারব ইনশা’আল্লাহ।’

সভাপ্রধানের বক্তব্যের পর দৈনিক বজ্রশক্তির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা হয়। এরপর ধারাবাহিকভাবে বক্তব্য প্রদান করেন আগত অতিথিবৃন্দ। বক্তারা দৈনিক বজ্রশক্তির সফলতা কামনা করেন। তারা যাবতীয় ধর্মান্ধতা, সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ‘অন্যায়ের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর’ স্লোগানকে ধারণ করে দৈনিক বজ্রশক্তির সাহসী ভূমিকার প্রশংসা করে ভবিষ্যতেও এই ধারা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান।

Bajroshakti-Ani

অনুষ্ঠানটি দেশবরেণ্য ব্যক্তিত্বদের মিলনমেলায় পরিণত হয়। অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে ‘মাটি মিউজিক’ এর পরিবেশনায় একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। মাটি মিউজিক এর শিল্পিরা ছাড়াও দেশবরেণ্য অনেক শিল্পি সংগীত পরিবেশ করেন।

বজ্রশক্তি/এস