সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর

চতুর্থ ধাপের ৭০৭ ইউপিতে ভোট আজ

0

Untitled-1স্টাফ রিপোর্টার:
ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের পর্যায়ক্রমিক ছয়টির মধ্যে তিনটি ধাপের ভোট গ্রহণ শেষে এবার চতুর্থ ধাপের ভোট গ্রহণ হবে আজ। ৪৭ জেলার ৮৮টি উপজেলার ৭০৭টি ইউপিতে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গত বৃহস্পতিবার রাত ১২টার পর থেকে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা শেষ হয়েছে। নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী এলাকার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় মাঠে রয়েছেন বিভিন্ন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। নির্বাচনী অনিয়মে তাৎক্ষণিকভাবে সাজা দিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের পাশাপাশি মাঠে থাকছেন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটরাও। ইসির এক নির্দেশনায় বলা হয়েছে, নির্বাচনী এলাকায় যানবাহন চলাচল সীমিত করতে হবে। নির্বাচনী আইনানুযায়ী, কোনো নির্বাচনী এলাকায় ভোটগ্রহণ শুরুর পূর্ববর্তী ৩২ ঘণ্টা জনসভা আহ্বান, অনুষ্ঠান বা তাতে যোগদান করতে অথবা কোনো মিছিল বা শোভাযাত্রার আয়োজন করতে পারবে না কেউ।
এদিকে গত ২২ ও ৩১ মার্চ এবং ২৩ এপ্রিল তিন ধাপে ইউপি নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম আর সহিংসতার কারণে চতুর্থ ধাপের নির্বাচন নিয়ে বড় ধরনের আতঙ্কে রয়েছে বিরোধী রাজনৈতিক দল এবং নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী স্বতন্ত্র প্রার্থী ও তাদের কর্মী-সমর্থকরা। সরকারদলীয় নেতাকর্মী ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তায় ভোটারদের হয়রানি, ভয়-ভীতি প্রদর্শন, হামলা-মামলাসহ বিরোধী রাজনৈতিক দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা দেওয়ার অভিযোগের মধ্যেই অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ নির্বাচন। ইতোপূর্বে অনুষ্ঠিত তিন দফার ইউপি নির্বাচনে ইসি থেকে কঠোর হুঁশিয়ারি দেওয়া সত্ত্বেও নির্বাচনের আগের রাতেই ব্যালটে সিল মেরে বাক্সে ভরা, কেন্দ্র দখল করে প্রতিপক্ষ প্রার্থীদের বের করে দেওয়ার মতো ঘটনা ঘটে। ভোটাররা ভোট দিতে পারবে কি না, সব প্রার্থী কেন্দ্রে যেতে পারবে কি না- ইত্যাদি আতঙ্কের মধ্যেই শুরু হচ্ছে এই চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচন। ইতোপূর্বে অনুষ্ঠিত তিন দফার নির্বাচনে সারাদেশে কমপক্ষে ৭৫ জন নিহত এবং ছয় হাজারের বেশি লোক আহত হয়েছেন। অধিকাংশ এলাকায় নির্বাচনে ভোটাররা তাদের ভোট দিতে পারেননি এবং প্রার্থীরা কেন্দ্রে যেতে পারেননি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফলে চতুর্থ ধাপের নির্বাচনেও একই ধরণের আশংকা রয়েছে প্রার্থী এবং ভোটারদের মধ্যে। নির্বাচন কমিশনের একটি সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনকে সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে প্রায় সব ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে ইসি। নির্বাচনের জন্য চেয়ারম্যান, সাধারণ ও সংরক্ষিত সদস্য পদের জন্য প্রায় পাঁচ কোটি ব্যালট পেপারসহ অন্যান্য জিনিসপত্র বৃহস্পতিবারই জেলা নির্বাচন অফিসে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, যাতে করে নির্বাচনে কোনো ধরনের সহিংসতা না হয়।
অন্যদিকে চতুর্থ দফার ইউপি নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী আজ ৭৪৩টি ইউপির ভোট গ্রহণের কথা থাকলেও নির্বাচন হচ্ছে ৭০৭টিতে। বিভিন্ন কারণে ৩৬টি ইউপির নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন এবং ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। এ ছাড়া বিএনপি, জাপা, জাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের পক্ষ থেকে কয়েকবার ইসিতে প্রশাসনের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্ব এবং ক্ষমতাসীন দলের বিরুদ্ধে বল প্রয়োগের অভিযোগ আনা হয়। সূত্র মতে, চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ৭০৭ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৩ হাজার ২৪৫ জন প্রার্থী প্রতিদন্দি¦তা করছেন। এর মধ্যে স্বতন্ত্র ১ হাজার ৫২২ জন এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ১ হাজার ৭২৩ জন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এ ছাড়াও নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী আসনে ৭ হাজার ১৫৯ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২৪ হাজার ১৮৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ৭২৪, বিএনপির ৬১৯ জন, জাতীয় পার্টির ১৫৬ জন, জাসদের ৪২ জন, ইসলামী আন্দোলনের ১৫৪ জন এবং বাকি প্রার্থীরা অন্যান্য বিভিন্ন দলের।
প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ ধাপে মোট ২ হাজার ৬৯২টি ইউপির মধ্যে ইতোমধ্যে ১৫০ জন আওয়ামী লীগের প্রার্থী বিনা ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। এর মধ্যে প্রথম ধাপে ৫৪ জন, দ্বিতীয় ধাপে ৩৪ জন ও তৃতীয় ২৯ জন ও চতুর্থ ধাপে ৩৩ জন। অন্যদিকে চার ধাপে নির্বাচনে ৩৮৭টি ইউপিতে বিএনপির কোনো প্রার্থী নেই।
উল্লেখ্য, গত ২৭ মার্চ চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ছিল গত ৭ এপ্রিল পর্যন্ত। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হয় ১০ ও ১১ এপ্রিল, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় ছিল ১৮ এপ্রিল, প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয় গত ১৯ এপ্রিল। আর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ। সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে এ ভোট গ্রহণ একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে। অন্যদিকে, ছয়টি ধাপের ৫ম ধাপে আগামী ২৮ মে ৭১৪টি এবং সর্বশেষ ৬ষ্ঠ ধাপে আগামী ৪ জুন ৬৬০টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

Leave A Reply