সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর

বেহাল দশায় পশ্চিম রেলের নিরাপত্তাব্যবস্থা: ৩২৬ ক্রসিংয়ে নেই সিগন্যাল ও গেটকিপার

0

Untitled-3ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি:
—————–
বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের ৩২৬টি রেলক্রসিংয়ে কোনো গেটকিপার ও সিগন্যালব্যবস্থা নেই। এসব রেলক্রসিং অবৈধ ও অনুমোদন ছাড়াই চলছে। ফলে প্রায়ই ঘটছে নানান দুর্ঘটনা।
বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্র জানায়, রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের ১ হাজার ২৪৯টি লেভেল ক্রসিং গেটের মধ্যে ৩২৬টি ক্রসিংয়ে কোনো গেটকিপার নেই, এমনকি সিগন্যালব্যবস্থাও নেই। বিষয়টি স্বীকার করে বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহা-পরিচালক (অবকাঠামো) রফিকুল আলম বলেন, আমরা এসব ক্রসিংয়ে অতিরিক্ত জনবল নিয়োগ দেব। গেট ব্যারিয়ার স্থাপন, চেকবেল, বিয়ারিং প্লেট, চেক ব্লক, চেক বোল্ট, ডগ স্পাইক ও উডেন স্লিপার সংগ্রহ করা হবে। প্রয়োজনীয় সিগন্যালিং ওয়ার্ক সংগ্রহ করাসহ রেল ক্রসিংগুলো আধুনিক করার প্রতিশ্র“তিও দেন এ রেল কর্মকর্তা। বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের লেভেলক্রসিং গেটগুলোর পুনর্বাসন ও মান উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় রেলক্রসিংগুলোতে সিগন্যালিং ব্যবস্থা উন্নতসহ গেটকিপার নিয়োগ দেওয়া হবে। এতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৭ কোটি ৮৪ লাখ টাকা।
সূত্র বলছে, অনুমোদনহীন রেলক্রসিং চিহ্নিত করে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে রেলওয়ে। ২০১৭ সালের জুন নাগাদ প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হবে। এর আওতায় গেটকিপার নিয়োগসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রকল্পের আওতায় আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে ৮৫১ জন গেটকিপার নিয়োগ, চার হাজার ৯৭৬টি গেট ব্যারিয়ার স্থাপন, ৪১৯ টন চেকবেল ও ১০ হাজার ৮৪৭টি বিয়ারিং প্লেট ক্রয়, ১৩ হাজার ৭৯৭টি চেক ব্লক, ৭ হাজার ৯৭২টি চেক বোল্ট, ৫৩ হাজার ৮৪২টি ডগ স্পাইক ও ৫ হাজার ৫০৮টি উডেন স্লিপার সংগ্রহ করা হবে। রেলওয়ে সূত্র জানায়, গত বছরের ১ আগস্ট ক্রসিং অরক্ষিত থাকায় ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার বারোবাজার রেল ক্রসিংয়ে ট্রেন ও বরযাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষে ১৩ জন নিহত হন। ৩২৬টি অবৈধ ও অননুমোদিত রেল ক্রসিংয়ের মধ্যে এই বারোবাজার রেলক্রসিং অন্যতম। এছাড়া প্রায় প্রতিদিনই এ অঞ্চলের বিভিন্ন রেলক্রসিংয়ে ঘটছে নানান দুর্ঘটনা।

Leave A Reply