Date: July 18, 2024

দৈনিক বজ্রশক্তি

Header
collapse
...
Home / সারাদেশ / রংপুর / প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধার নামে কটুক্তির মামলার রায়ে ৭ দিনের দণ্ড, সাজা বৃদ্ধির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধার নামে কটুক্তির মামলার রায়ে ৭ দিনের দণ্ড, সাজা বৃদ্ধির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

July 09, 2024 05:50:07 PM   উপজেলা প্রতিনিধি
প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধার নামে কটুক্তির মামলার রায়ে ৭ দিনের দণ্ড, সাজা বৃদ্ধির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

মো. মোস্তফা, পাটগ্রাম সংবাদদাতা, লালমনিরহাট:
লালমনিরহাটের পাটগ্রামে প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ারুল ইসলাম নাজু’র নামে সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কটুক্তি ও মানহানির ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ৭ দিনের দণ্ডের বিরুদ্ধে উষ্মা প্রকাশ করে সাজা বৃদ্ধির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) সকাল ১১ টায় পাটগ্রামের তাহেরা বিদ্যাপীঠ হলরুমে উক্ত সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

পাটগ্রাম উপজেলার স্ব-ঘোষিত ‘মুক্তিযোদ্ধা গবেষক’ দাবিদার উপজেলার রসুলগঞ্জ গ্রামের মৃত তমিজ উদ্দিন আহমেদের ছেলে সায়েদুল ইসলাম মিঠুর বিরুদ্ধে এ সংবাদ সম্মেলন করেন প্রয়াত আনোয়ারুল ইসলাম নাজু’র পুত্র শোয়ায়েবুল ইসলাম সোয়েব।

লিখিত বক্তব্যে শোয়ায়েবুল ইসলাম সোয়েব বলেন, ২০২০ সালের ২০ জুলাই পাটগ্রাম উপজেলার স্ব-ঘোষিত ‘মুক্তিযোদ্ধা গবেষক’ দাবিদার সায়েদুল ইসলাম মিঠু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পাটগ্রাম উপজেলা সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি অত্র উপজেলা আওয়ামী লীগের ২৮ বছরের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত আনোয়ারুল ইসলাম নাজু এর বিরুদ্ধে কটুক্তি ও মিথ্যা তথ্য প্রকাশ করেন। তার প্রতিবাদে ওই সময় উপজেলার সর্বস্তরেরজনগণ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। আমি ওই সময়ে এই ঘটনার প্রতিবাদে পাটগ্রাম থানায় লিখত অভিযোগ করি। পরবর্তীতে বাংলাদেশ পুলিশ এর সাইবার টিম প্রায় ২ বছর তদন্ত শেষে ঘটনাটি মিঠুর দাবিকৃত বক্তব্য মিথ্যা বলে লিখত তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে এবং পাটগ্রাম থানায় রাষ্ট্রপক্ষ বাদী হয়ে সাইবার ট্রাইবুনাল (রংপুর) এ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৫(২) ও২৯ (১) ধারায় অভিযোগ গঠন করে একটি মামলা দায়ের করে। যায় মামলা  নম্বর সিটি কেস ১৩০/২২।

সোয়েব আরও বলেন, দীর্ঘ প্রায় দুই বছর ধরে মামলাটির সকল আইনি প্রক্রিয়া শেষ করে বিজ্ঞ সাইবার ট্রাইবুনাল (রংপুর) গত ৮ জুলাই খ্রী. তারিখে রায় প্রদান করেন। উক্ত রায়ে বিজ্ঞ আদালত আসামি সায়েদুল ইসলাম মিঠুরর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৫(২) এবং ২৯(১) ধারায় গঠিত অভিযোগ সন্দেহাতিতভাবে প্রমানিত হাওয়ায় আসামিকে দোষী সাব্যস্তক্রমে ২৫ (২)২৯(১)ধারার প্রত্যেক ধারায় সাত দিন বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও এক হাজার টাকা অর্থদণ্ড ও অনাদায়ে একদিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দন্ডিত করে।

এদিকে রায় ঘোষণা পর আসামী সায়েদুল ইসলাম মিঠুর হাতকড়া পড়িয়ে জেল হাজতে পাঠানো হয়। পরবর্তীতে আসামী সায়েদুল ইসলাম মিঠু আদালতে ৪২৬ ধারায় ৫০০০ টাকার অর্থদণ্ড প্রদান করে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে উক্ত রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন শর্তে জামিন গ্রহণ করেন।

সন্দেহাতিতভাবে প্রমাণিত হাওয়া সত্ত্বেও মাত্র ৭ দিনের দণ্ড ও রায়ের বিরুদ্ধে আপিল এবং জামিন গ্রহণ করায় সংবাদ সম্মেলনে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান শোয়ায়েবুল ইসলাম সোয়েব। তার জামিন বাতিলের দাবিও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ফারুক হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মোশাররফ হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ জাকির হোসেন, বিদ্যাপীঠের এর পরিচালক মণ্ডলির সদস্য বাবু রতন কুমার সাহা, মোঃ আহসান হাবীব স্বপন, অধ্যক্ষ মোঃ আহসান  উল হাবিব, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ পাটগ্রাম উপজেলা শাখার সহ-দফতর সম্পাদক ও সহকারী শিক্ষক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম সাদ্দামসহ অত্র বিদ্যাপীঠের সহকারী শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ।